Inspirational article that will Motivate You-For WBCS Aspirants

By |

ডব্লিউ বিসিএস পরীক্ষার্থীদের জন্য একটি ইনস্পিরেশনাল আর্টিকেল

আপনি কি ডব্লিউ বি সি এস এর পরীক্ষার্থী ?

আপনাকে ডাবলু বিসিএস পরীক্ষা দেওয়ার কথা ভাবছেন ?

তাহলে পড়ুন এই আর্টিকেলটি-

চ্যালেঞ্জ নিন, উঠে দাঁড়ান। বিল গেটস শুন্য থেকে কিভাবে উঠে এসেছে এটা না জানলে কি আপনি শুন্য থেকে উঠতে পারবেন না? কোন ছেলেটি রিক্সাওয়ালার ঘরে জন্ম নিয়েও WBCS ক্যাডার হয়েছেন – এই গল্পটি না জানলে কি আপনার বিসিএস ক্যাডার হওয়া বন্ধ হয়ে যাবে? একবার সফল হওয়ার আগে কে কতবার ব্যর্থ হয়েছেন- আপনার সফলতার জন্য এটা জানা কি খুব জরুরি? আপনাকে কেন অন্যের সফলতার গল্প শুনে নিজের টার্গেট ঠিক করতে হবে? পেছন থেকে যখন পাগলা কুকুর তাড়া করে, তখন আপনি এটা ভাবেন না যে, এর আগে কেউ পাগলা কুকুরের কামড় থেকে বাঁচতে পেরেছে কি-না। ঐ মুহুর্তে আপনি এটাও ভাবেন না যে, আপনার মত দুর্বল কেউ এর আগে দৌঁড়ে পালাতে পেরেছে কি-না! বস, পাগলা কুকুর যখন পেছন থেকে তাড়া করবে তখন সব ছেড়ে আপনি এমন এক দৌঁড় দেবেন, তখন সে দৌঁড়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ান দৌঁড়বিদ উসাইন বোল্ট আপনার আগে যেতে পারবে কি-না সন্দেহ আছে। জীবনের প্রত্যেক সফলতার জন্য এমন দৌঁড় চায়।কোনো একটা কাজ কেউ পারেনি, এর মানে এই নয় সেটা আপনিও পারবেন না। হ্যালোমিস্টার, জীবনটা তো আপনারই। কে পারলো আর কে পারলো না তার হিসেব বাদ দিয়ে,নিজে কিভাবে পারবেন সে হিসেব করুন। সোজা কথা, টার্গেট পূরণ করতে গিয়ে যদি সুনামি বয়ে যায় তো যাক, টর্নেডো কাঁপিয়ে দিলে দিক, ভুমিকম্প নাড়িয়ে দেয়ার থাকলে তাই দিক- তবু একচুল পরিমাণও সরে যাব না টার্গেট পূরণ করার আগে।জীবনটা তো আপনারই। আপনাকে আপনার প্রয়োজনেই চাকরিটা পেতে হবে, সেরাআইডেন্টিটি গড়তে হবে। আপনি যখন খুব আয়েশ করে ১০টায় ঘুম থেকে উঠে প্ল্যান করছেন ৩০ হাজার টাকা বেতনের একটা চাকরির জন্য, তখন অলরেডি গুজরাতের কটন ইন্ডাস্ট্রিতে কয়েকশ কোটি টাকার কাজ হয়ে যায়। অলসতা ভাঙ্গুন, উঠুন,দৌঁড়ান। আপনি বিল গেটসের মত ধনী হতে চাইবেন, অথচ শ্রম দিবেন ঘুম কাতুরে অলস যুবকের মত, তা তো হবে না। আপনি WBCS ক্যাডারদের মত সফল হতে চাইবেন কিন্তু তার মত শ্রম দিতে চাইবেন না – এটা মেনে নেয়া যায় না। সাঁতারে চ্যাম্পিয়ান হতে হলে আপনাকে জলে ডুবে যাওয়ার ভয় বাদ দিয়ে সোজা জলে নেমে তবেই চ্যাম্পিয়ান ট্রফি ছিনিয়ে আনতে হবে। পুকুর পাড়ে বসে থাকলে সেখানে কেউ এসে আপনার হাতে চ্যাম্পিয়ান এওয়ার্ড তুলে দিয়ে যাবেনা। নিয়োগকর্তারা কেউ আপনার শত্রু নয়; তারা আপনাকে নেয়ার জন্যই নিয়োগ দিয়েছেন। কিন্তু সেই নিয়োগ পরীক্ষায় আপনি যদি নিজেকে সেরা প্রমাণ করতে না পারেন, তবে অন্য কেউতো তাকে সেরা প্রমাণ করে এপয়েন্টমেন্ট লেটারটি ঠিকই ছিনিয়ে নেবে। সবার সাথে ফাঁকি দেয়া যায় কিন্তু নিজের সাথে নয়।আমাকে আমার জন্য সফল হতে হবে। বন্ধুরা যখন আইডি কার্ড ঝুলিয়ে অফিসে যায়,তখন লোকে আপনাকে বেকার বলে। এজন্য আপনাকে একটা চাকরি পেতে হবে। আপনার মা বাবা আপনার চাকরির আশায় তাকিয়ে আছে- এজন্য আপনাকে চাকরি পেতে হবে। আরে বস, সবচেয়ে বড় কথা আপনি এখনো অন্যের কাছে হাত পেতে চলেন। শুধু এটা বন্ধ করে একটা সোশ্যাল ভেল্যু তৈরির জন্য হলেও একটা চাকরি দরকার। জীবনটা তো আপনারই।প্রস্তুতি নেয়ার সময় এমনভাবে মাথায় সব ঢুকান যেন মাথা ভাঙলে মাথা থেকে রক্ত সব বের হয়ে যাবে কিন্তু পড়াগুলো বের হবেনা। গাছের নিচে যেমন আগাছা থাকে, মানুষের স্বপ্নের পেছনেও হতাশা থাকে। প্রতিদিন এমন একটা লেখা পড়ুন যেটা আপনার হতাশার আগাছাকে সোজা টেনে গ্রেনেড মেরে উড়িয়ে দেবে। এমন লোকের সাথে কথা বলুন, যিনি সাহস দিতে পারেন- পজিটিভ চিন্তা করতে পারেন।জীবন আপনার ।সিদ্ধান্ত টা ও আপনার ।
ভালো থাকুন পজিটিভ থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *